শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

মহাকাশে প্রথম কোন আরব পা রাখলেন

প্রকাশ: ২ মে ২০২৩ | ২:১৮ অপরাহ্ণ আপডেট: ২ মে ২০২৩ | ২:১৮ অপরাহ্ণ
মহাকাশে প্রথম কোন আরব পা রাখলেন

আমাদের এই বিশাল পৃথিবী ঘিরে আছে হাজারো রহস্য। প্রতিনিয়ত কৌতুহলী মানুষ সেসব আবিষ্কারের চেষ্টা করছেন। পৃথিবীর বাইরে বিভিন্ন গ্রহে পাড়ি জমিয়েছেন। সেই অর্জনের বাইরে নয় আরবরাও। এবার মহাকাশে প্রথম পা পড়ল আরব দেশের কোনও মহাকাশচারীর।

গত শুক্রবার আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (আইএসএস)-এর বাইরে স্পেসসুট পরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের পতাকা নিয়ে বেরোলেন সে দেশের মহাকাশচারী সুলতান আল নেয়াদি। মহাশূন্যের গা ছমছমে অন্ধকারে হাঁটাহাঁটি (স্পেসওয়াক) করলেন। স্পেসসুটের হাতায় তখন জ্বলজ্বল করছিল, ‘অসম্ভবই সম্ভব’।

মার্কিন মহাকাশচারী স্টিফেন বাওয়েনের সঙ্গে আন্তর্জাতিক স্পেসস্টেশনের বাইরে মহাশূন্যে স্পেসওয়াক করেছেন নেয়াদি। প্রায় ৬ ঘণ্টা মহাশূন্যে হাঁচাহাঁটি করেছেন তারা। আইএসএসের ভিতর থেকে তাদের সাহায্য করেছেন নাসার দুই ফ্লাইট ইঞ্জিনিয়ার, উডি হোবার্গ ও ফ্রাঙ্ক রুবিও।

মহাকাশ অভিযানে আগেই মাইলফলক তৈরি করেছে সৌদি আরব। মঙ্গলেও পাড়ি দিয়েছে আরব দেশ। এতদিন মঙ্গল-যাত্রার একচেটিয়া গর্ব ছিল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা, ইউরোপীয়ান স্পেস এজেন্সি (ইএসএ), ভারতের ইসরো, রাশিয়ার রসকসমস সহ কয়েকটি দেশেরই। এবার সেই তালিকায় ঢুকে পড়েছে আরব আমিরশাহির মহম্মদ বিন রশিদ স্পেস সেন্টার।

উপসাগরীয় অঞ্চলের প্রথম দেশ হিসেবে ২০১৯ সালে মহাকাশ অভিযান শুরু করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ওই বছর দেশটির একজন নভোচারী মহাকাশে যান। দেশটির নভোচারী হাজ্জা আল-মানসৌরি আট দিন আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে ছিলেন।

গত ২ মার্চ নাসার স্পেস এক্স ক্রু-৬ মিশনে যোগ দেন সুলতান। এটি তার প্রথম স্পেসওয়াক। অন্য দিকে বাওয়েনের এটি অষ্টম স্পেসওয়াক। শুক্রবার অবশ্য বাওয়েনই প্রথম আইএসএসের বাইরে পা রাখেন শুক্রবার। তার পরে আমিরাতের স্থানীয় সময় বিকেল ৫.৩৯ নাগাদ বেরোন আল নেয়াদি। নাসার হিউস্টনের কেন্দ্র থেকে পুরো সময়টাই যোগাযোগ রাখা হয়েছিল এই দুই মহাকাশচারীর সঙ্গে।

বলা হয়েছিল প্রতি ৯০ মিনিট অন্তর তাদের দস্তানা ও হেলমেট অ্যাবসর্পশন প্যাড পরীক্ষা করে দেখতে সেগুলি শুকনো আছে কি না। বিন্দুমাত্র জলের কণা দেখলেই আইএসএসের ভিতরে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ ছিল। পাশাপাশি খেয়াল রাখা হয়েছিল তাদের অক্সিজেন লেভেল ও ব্যাটারির শক্তির দিকেও।

সম্পর্কিত পোস্ট