শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

সৌদি আরবে হামলা চালাতে পারে ইরান, সতর্ক আছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশ: ২ নভেম্বর ২০২২ | ৭:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: ২ নভেম্বর ২০২২ | ৭:০৬ অপরাহ্ণ
সৌদি আরবে হামলা চালাতে পারে ইরান, সতর্ক আছে যুক্তরাষ্ট্র

সৌদি আরবে হামলা চালাতে পারে ইরান। মঙ্গলবার (১ নভেম্বর) এমন একটি গোয়েন্দা তথ্য যুক্তরাষ্ট্রের কাছে প্রদান করেছে দেশটি। মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের বরাত দিয়ে এমন তথ্য জানায় আলজাজিরা।

সৌদি আরবে হামলা হলে এর পাল্টা জবাব দিতে কার্পণ্য করবে না বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্ভাব্য এই হামলার আশঙ্কা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ওয়াকিবহাল আছে মন্তব্য করে এমনটা জানায় ওয়াশিংটন।

মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা পর্ষদ এক বিবৃতিতে জানায়, যুক্তরাষ্ট্র্র এই হুমকির বিষয়ে ওয়াকিবহাল আছি। সামরিক ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলছে।

এসময় অঞ্চলটিতে নিজেদের স্বার্থ ও অংশীদারদের রক্ষার্থে কোনো প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণে দ্বিধা করবে না বলেও জানায় যুক্তরাষ্ট্র।  

এ বিষয়ে সৌদি আরব এবং ইরান কর্তৃপক্ষ কোনো ধরণের মন্তব্য করেনি।

এরআগে, চলমান হিজাববিরোধী আন্দোলনে সৌদি আরব উস্কানি দিচ্ছে বলে অভিযোগ জানিয়ে আসছে ইরান। অক্টোবরে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী রক্ষীবাহিনী এই আন্দোলনে সৌদি আরবকে হস্তক্ষেপ করার ব্যাপারে সর্তক করে।

সৌদি আরব ফার্সি ভাষাভিত্তিক স্যাটেলাইট চ্যানেলের মাধ্যমে ইরানের আন্দোলনের ব্যাপক কভারেজ দিচ্ছে। এছাড়াও সৌদি মদদপুষ্ট লন্ডনভিত্তিক গণমাধ্যম ইরান ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমেও আন্দোলনের খবর ছড়িয়ে দিচ্ছে সৌদি আরব।

ইসলামি বিপ্লবী রক্ষীবাহিনীর কমান্ডার মেজর জেনারেল হুসাইন সালামি বলেন, এটা আমাদের শেষ সতর্কবানী। আপনারা (সৌদি আরব) এসব গণমাধ্যমের মাধ্যমে আমাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করছেন। আপনারা ঝুঁকিতে আছেন জেনেও এ পরিস্থিতিতে নাক গলাচ্ছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা জানান, এটি একটি বিশ্বাসযোগ্য হুমকি। খুব দ্রুতই এ হামলা পরিচালনা করা হতে পারে।

তবে এই হুমকির বিপরীতে সৌদি আরবসহ অন্যান্য আরব দেশে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিকদের প্রতি কোনো সতর্কবানী বা নির্দেশনা প্রদান করেনি মার্কিন দূতাবাস বা উপদূতাবাসগুলো।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের গণমাধ্যমবিষয়ক সচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্যাট রাইডার বলেন, মার্কিন সামরিক কর্মকর্তারা অঞ্চলটিতে (সৌদি আরব) হুমকিজনিত পরিস্থিতি নিয়ে সচেতন আছেন।

তিনি বলেন, আমরা নিয়মিত সৌদি কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছি। আমাদের সৈন্যরা ইরাকে হোক বা অন্যকোথাও যেখানেই কাজ করে থাকুক না কেন আমরা আমাদের স্বার্থ রক্ষার্থে পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

এ নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস কোনো বিস্তারিত ব্যাখ্যা না দিয়ে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এই ব্যাপারে সচেতন আছে।

সম্পর্কিত পোস্ট