বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সুনামগঞ্জে বাড়ছে নদীর পানি, কাঁচা ধান কাটায় ব্যস্ত কৃষক

প্রকাশ: ১৬ এপ্রিল ২০২২ | ১:২২ অপরাহ্ণ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০২২ | ১:২২ অপরাহ্ণ
সুনামগঞ্জে বাড়ছে নদীর পানি, কাঁচা ধান কাটায় ব্যস্ত কৃষক

ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কায় ৮০ শতাংশ পেকে গেছে এমন ধান কেটে ফেলার আহ্বান জানিয়েছে সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসন। এতে জেলায় আবাদ করা ২ লাখ ২২ হাজার ৮০৫ হেক্টর জমির কাঁচাপাকা বোরো ধান কাটায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা।

গত কয়েক দিনের পাহাড়ি ঢলে অকাল বন্যায় সুনামগঞ্জে অনেক বাঁধের ভাঙন ঠেকানো গেলেও কিছু বাঁধ ভেঙে কৃষকদের কাঁচা ধান ডুবে গেছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন জেলার হাজারো কৃষক। ফাটল ধরা যে বাঁধগুলো এখনো টিকে রয়েছে, সেগুলোয় কৃষকরা স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছেন।

শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর ও ভারত আবহাওয়া অধিদপ্তরের গাণিতিক মডেলের তথ্য অনুযায়ী, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের আসাম, মেঘালয় ও অরুণাচল প্রদেশে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলার প্রধান নদ-নদীসমূহের পানি দ্রুত বৃদ্ধি পেতে পারে। যার ফলে সুরমা নদী সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলায় এবং ধনু বাউলাই নদী নেত্রকোনা জেলায় বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে।

সতর্কবার্তায় আরও বলা হয়েছে, আগামী ২৪-৭২ ঘণ্টায় সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা ও কিশোরগঞ্জ জেলায় আকষ্মিক বন্যার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে। শুক্রবার দুপুর ১২টায় সুনামগঞ্জ পয়েন্টে সুরমা নদীর পানি সমতল ৫.২৫ সে. মিটার এবং শক্তিয়ারখলা পয়েন্টের যাদুকাটা নদীর পানি ৪.৪২ সে. মিটার ছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় সুনামগঞ্জ পয়েন্টে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৩ মিলি মিটার এবং ভারতের চেরাপুঞ্জিতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ২৮৮ মিলি মিটার। তবে এখন পর্যন্ত জেলার সব নদ-নদীর পানি বিপৎসীমার নিচে থাকলেও আগামী কয়েক দিনে বিপৎসীমা অতিক্রম করার আশঙ্কা রয়েছে।

সম্পর্কিত পোস্ট