বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ঈদপ্রীতি সমাবেশ সম্পন্ন

প্রকাশ: ৯ মে ২০২২ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: ৯ মে ২০২২ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ
যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ঈদপ্রীতি সমাবেশ সম্পন্ন

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির উদ্যোগে ঈদপ্রীতি সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঈদপ্রীতি সমাবেশে বক্তারা খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনে জন্য আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

গত ৪ মে (বুধবার) রাতে নিউইয়র্ক সিটির উডসাইড কুইন্স প্যালেসে বিএনপি নেতা সারওয়ার খান বাবুর উদ্যোগে এই ঈদপ্রীতি সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। এতে বিএনপি এবং তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ঈদের আগে থেকেই ঈদপ্রীতি সমাবেশের আয়োজনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছিল।

প্রসঙ্গত: ১২ বছর আগে থেকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির কমিটি নেই। সেটি গঠনের কোন অভিপ্রায় হাই কমান্ডের নেই বলে ইতিমধ্যেই সকলে নিশ্চিত হয়েছেন। এর বিকল্প হিসেবে তারেক রহমানের তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন স্টেট ও সিটি কমিটি গঠনের পরিক্রমা অবলম্বন করা হয়েছে। এতদসত্বেও যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির ব্যবহারে অনেকে অসন্তুষ্ট এবং ক্ষুব্ধ বলে উল্লেখ করা হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আহবায়ক চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন সঙ্গীত শিল্পী বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক বেবী নাজনীন, বিএনপির জাতীয় কমিটির সদস্য ও জাসাস কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক চিত্রনায়ক হেলাল খান ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর ফাতেমা সালাম।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ফোরাম অব নর্থ আমেরিকার সাবেক সভাপতি, বিএনপি নেতা সারওয়ার খান বাবু’র পরিকল্পনা, পৃষ্ঠপোষকতা ও পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রায় তিন’শ নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন। সার্বিক সহযোগিতা ছিলেন যুবনেতা আবু সাইদ আহমেদ, একেএম রফিকুল ইসলাম ডালিম, গোলাম এন. হায়দার মুকুট, খলকুর রহমান, আমানত হোসেন আমান ও হাসান আহমেদ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুস সালাম বলেন, আমেরিকা স্যাঙ্কশন দিয়ে প্রমাণ করেছে দেশে গণতন্ত্র নেই, মানবাধিকার নেই। দেশজুড়ে গণহত্যা, গুম, গুপ্তহত্যা, নারী ও শিশুদের ওপর পৈশাচিকতা, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, দুর্নীতি, নিপীড়ন ও নির্যাতনের মহোৎসব চলছে। জাতীয় ও স্থানীয় সকল নির্বাচন তামাশায় পরিণত হয়েছে। দেশে সঠিক পন্থায় নির্বাচন না থাকায় গণতন্ত্র এখন মৃতপ্রায়।

তিনি দেশে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা ও বেগম জিয়ার মুক্তির জন্য যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি-নেতাকর্মীদের আন্দোলন জোরদারের পাশাপশি আন্তর্জাতিক মহলেরও হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতা গিয়াস আহমেদ, মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার, কাজী সাখাওয়াত হোসেন আজম, নিয়াজ মোহাম্মদ জুয়েল, জসিম উদ্দিন ভূইয়া, মোহন খান, সৈয়দ রেজা মাকসুদুল হাসান, রাফেল তালুকদার, প্রফেসর রফিকুল ইসলাম, গোলাম ফারুক শাহীন, আলহাজ্ব মাহফুজুল মাওলা নান্নু, আলহাজ্ব আবু তাহের, এম এ বাতিন, মাওলানা অলিউল্লাহ মো. আতিকুর রহমান, সাঈদুর রহমান সাঈদ, জাকির এইচ চৌধুরী, এবাদ চৌধুরী, মাকসুদল হক চৌধুরী, আব্দুস সবুর, আব্দুল বাসেত, আতিকুল হক আহাদ, মিজানুর রহমান মিজান, জসিম উদ্দিন (ভিপি), গিয়াস উদ্দিন, হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, রুহুল আমিন নাছির, আশরাফ উদ্দিন, আব্দুল খালেক, তোফায়েল আহমেদ লিটন, মাজহারুল ইসলাম জনি, কাউসার আহমেদ, শরীফ লস্কর, আমিনুল ইসলাম স্বপন, এজেডএম জাহাঙ্গীর হাসাইন, সাইফুর খান হারুন, আহবাব চৌধুরী খোকন, যুক্তরাষ্ট্র জাসাস আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার সায়েম, সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর সোরওয়ার্দি, শেখ হায়দার আলী, শেখ শাহজাহান, বিএম বাদশা, সোয়েব হোসেন খান, ইঞ্জিনিয়ার মাঈন উদ্দিন, মোহাম্মদ সেলিম, মাসুদ, হাবিব উল্যাহ, আব্দুস সালিক জাকির, লিটন খান, আমজাদ হোসেন, শাহবাজ আহমেদ, মাসুদ করিম মিলন, ফরিদ খন্দকার, নীরা রাব্বানী, মামুন আব্দুল্লাহ, নুরে আলম, এ.কে.এম কাইয়ূম, দেওয়ান কাউসার, কামরুল হাসান, মোস্তাক আহমেদ, আরিফ, জিয়াউর রহমান মিলন, হুমায়ুন কবির, শহীদুল ইসলাম সিকদার, মিজানুর রহমান মিজান, বাবুল হোসেন সোনারগাঁ, কোকো স্মৃতি সংসদের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন রাজু, মাহবুবুর রহমান, আলমগীর হোসেন মির্জা, কামাল উদ্দিন দিপু, জিয়াউল হক মিশন, সৈয়দ আজাদ, মারুফ আহমেদ, রুবেল গাজী, আক্তারুজ্জামান, রহিজ উদ্দিন, মনির হোসেন মনির, মনির দেওয়ান, বক্সার সেলিম, আলমগীর খান আলম, জাফর তালুকদার, এডভোকেট আরিফ চৌধুরী, আনোয়ার, রোজি, নাঈম, রিপন, সোয়েব আহমেদ, লিয়াকত হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ শাহবাজ আহমেদ। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা অলিউল্লাহ মো. আতিকুর রহমান।

সম্পর্কিত পোস্ট