সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১

মিরসরাইয়ে মুক্তির উৎসব ও সুবর্ণজয়ন্তী মেলা উদ্যাপন

প্রকাশ: ২৩ মার্চ ২০২২ | ৮:০০ অপরাহ্ণ আপডেট: ২৩ মার্চ ২০২২ | ৮:০০ অপরাহ্ণ
মিরসরাইয়ে মুক্তির উৎসব ও সুবর্ণজয়ন্তী মেলা উদ্যাপন

মিরসরাইয়ে স্বাধীণতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ৭দিনব্যাপী মুক্তির উৎসব ও সুবর্ণজয়ন্তী মেলা সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার (২৩ মার্চ) মেলার শেষ দিন শ্রেষ্ঠ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিনহাজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির খানের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসএমএন জামিউল হিকমা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ফজলুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জসিম উদ্দিন চৌধুরী, নুর হোসেন, মো. শফি প্রমুখ।

মেলায় সরকারী ও বেসরকারী ২৮টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়ে বিভিন্ন সেবা দেয়। মেলার শেষ দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কে প্রথম স্থান, যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থানে মিরসরাই প্রেস ক্লাব ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, যৌথভাবে তৃতীয় স্থানে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ মিরসরাই জোনাল অফিস ও জোরারগঞ্জ থানার নাম ঘোষণা করা হয়। এসময় অতিথিবৃন্দ প্রতিষ্ঠান প্রধানদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন, ‘স্বাধীণতার পরবর্তীতে স্বাধীণতা বিরোধী অপশক্তি বঙ্গবন্ধুকে স্ব-পরিবারে হত্যা করে স্বাধীণতার স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে দেশকে পিছিয়ে দিয়েছিলো। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর দেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তোরণ করেছে। আবার শুরু হয়েছে অপশক্তির চক্রান্ত। এজন্য আগামী দিনে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একসাথে মিলেমিশে কাজ করতে হবে।’

দ্বিতীয় স্থান অর্জন করায় মিরসরাই প্রেসক্লাবের সভাপতি নুরুল আলম বলেন, কাজের স্বীকৃতি সব সময় আনন্দের। ভালো কাজের উৎসাহ উদ্দীপনা পেলে দায়িত্ব এবং কাজের স্পৃহা বেড়ে যায়।

সংলাপ-২৩/০৩/০০৮/আ/আ

সম্পর্কিত পোস্ট