মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১

আন্তর্জাতিক মা দিবস

মায়ের স্মৃতি খুঁজে ফেরেন প্রবাসী সন্তান

প্রকাশ: ৮ মে ২০২২ | ২:৩৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ৮ মে ২০২২ | ২:৪৮ পূর্বাহ্ণ
মায়ের স্মৃতি খুঁজে ফেরেন প্রবাসী সন্তান

মে মাসের দ্বিতীয় রোববার আন্তর্জাতিক মা দিবস। দিনটি কারো জন্য উৎসবের, কারো জন্য বেদনার। দেশে বসে মায়ের সঙ্গে সময় কাটানো গেলেও মায়ের আদর-স্নেহ থেকে বঞ্চিত হন প্রবাসীরা। দেশ থেকে হাজার মাইল দূরে প্রবাসী সন্তানের কর্মব্যস্ত সময় কাটে। এর একফাঁকে মায়ের মুখের কথাগুলো যেন সকল ক্লান্তি দূর করে দেয় তাদের। কয়েকটি বাক্য বিনিময় শত পরিশ্রমের ক্লান্তি মুছে পুনরায় কাজে যোগ দেয়ার সাহস যোগায়। বছরের পর বছর এভাবে লেখা হয় পরবাসের দিনলিপি।

পরবাসে দিনযাপন করতে গিয়ে কেউ কেউ হারিয়ে ফেলেন ‘মা’ নামের অমূল্য সম্পদ। প্রবাসে নানা নিয়ম-নীতি আর জটিল সমিকরণে পড়ে শেষ যাত্রায় মায়ের মুখও দেখা হয় না কোনো কোনো সন্তানের। ক্রমাগত দিন যায় আর অতীত সময় জড়িয়ে মায়ের স্মৃতি খুঁজে ফেরেন প্রবাসী সন্তান।

দুবাই প্রবাসী চট্টগ্রামের ইয়াকুব সৈনিকের মাতৃ বিয়োগের খবর ছড়িয়ে পড়লে ঈদের আগে এক ঝাপটা শোক নামে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাংলাদেশ কমিউনিটিতে। এটি গত ২৭ এপ্রিলের ঘটনা। প্রবাসে পরিচিত মুখ হওয়ায় ইয়াকুব সৈনিকের শোকে শোকাহত হন বাংলাদেশিরা।

১২ বছর ধরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে রয়েছেন শামসুন নাহার স্বপ্না। গত বছর জুলাই মাসে মা হারান তিনি। এখনো বছর পার হয়নি। যেকোনো দিবস ও উৎসবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি মাকে নিয়ে নানা স্মৃতিচারণ করেন।

মিরসরাই প্রবাসী তারেক উজ জামান চৌধুরী তকির মাকে হারিয়েছেন কয়েক বছর হলো। এখন প্রতিবছর মায়ের আত্মার শান্তি কামনায় বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে কোরআন শরিফ বিতরণ করেন। এবার রমজান মাসেও তাকে এই কাজটি করতে দেখা গেছে।

ইয়াকুব সৈনিক, স্বপ্না আর তকিরদের মতো অসংখ্য প্রবাসী কর্মযজ্ঞে ডুবে থাকলেও ক্ষণে ক্ষণে মনে পড়ে মায়ের কথা। কখনো কখনো বিষন্নতায় ঘিরে ধরে তাদের। আনন্দ-উৎসব কিংবা দেশে ফিরে গেলেও মাতৃত্বের ছায়া বঞ্চিত এরা বয়ে বেড়ান বিশাল এক শূন্যতা। একসময় মায়ের মুখের সামান্য কথাও মন ভালো করে দেওয়া প্রবাসীকে কেবল মায়ের স্মৃতি আকড়ে ধরে পার করতে হয় বাকি জীবন।

শারজার প্রবাসী সাংবাদিক আব্দুল্লাহ আল শাহীন কিছুদিন আগে মাকে হারিয়েছেন। মাকে ছাড়া এবার ছিল তার প্রথম ঈদ উদযাপন। আন্তর্জাতিক মা দিবস প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে শাহীন বলেন, ঈদ এবং মা দুটো শব্দ সমানই মনে হয়। মা যেমন একজন সন্তানের আনন্দের উৎস, অনুভূতি প্রকাশের জায়গা। ঈদও আমাদের আনন্দের উৎস, উৎসবের জায়গা। মাকে ছাড়া আনন্দের উৎস খুঁজে পাওয়া কঠিন। যখন মনে হয় মা নেই, তখন সকল আনন্দ মাটি ছাপা পড়ে যায়।

ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন আরব আমিরাত শাখার সভাপতি ইয়াসমিন ইসলাম মেরুনা বলেন, মা দিবসে বিশ্বের সকল মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। মায়ের সাথে আমাদের নাড়ীর টান। মায়ের বিকল্প কিছুই নেই। প্রবাসে সবকিছু মাকে ছাড়া করতে হয়। অনেকে চাকরির জন্য, অনেকে পড়ালেখার জন্য পরিবার ছেড়ে প্রবাসে একা থাকতে হয়। প্রত্যেকটি উৎসবে তাদের মাকে মনে পড়ে। মা বিহীন যেকোনো উৎসবে ভাল অনুভূতি হয় না। বিশেষ করে প্রবাসীদের জন্য যা খুবই কষ্টদায়ক।

সম্পর্কিত পোস্ট