শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

মালয়েশিয়ায় অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের সম্মাননা পেলেন ২ প্রবাসী

প্রকাশ: ২৬ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪:৩৪ অপরাহ্ণ আপডেট: ২৬ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪:৩৪ অপরাহ্ণ
মালয়েশিয়ায় অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের সম্মাননা পেলেন ২ প্রবাসী

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের মালিকানাধীন মালয়েশিয়াস্থ অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের ১৭ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রবাসী দুই বাংলাদেশিকে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। শনিবার (২৪ ডিসেম্বর) রাজধানী কুয়ালালামপুরের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে এই বিশেষ সম্মাননা পদক তুলে দেওয়া হয়।

মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. গোলাম সারোয়ার ও অগ্রণী ব্যাংক ও অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত সম্মাননা তুলে দেন।

সম্মাননা পাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি মালিকানাধীন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান ‘সি মিলেনিয়াম ট্রেড (এম) এসডিএন বিএইচডির স্বত্বাধিকারী মো. অহিদুর রহমান অহিদ এবং মালয়েশিয়ার সানওয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. সাইদুর রহমান। মো. অহিদুর রহমান অহিদ অনুপস্থিত থাকায় তার সম্মাননা গ্রহণ করেন সি মিলেনিয়াম ট্রেড (এম) এসডিএন বিএইচডির জেনারেল ম্যানেজার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

মো. অহিদুর রহমান অহিদ বাংলাদেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় কমার্শিয়াল ইম্পরট্যান্ট পারসন (সিআইপি) নির্বাচিত হয়েছেন। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি পণ্যের আমদানিকারক অনাবাসী বাংলাদেশি ক্যাটাগরিতে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ছাড়া মালয়েশিয়া থেকে বৈধপথে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স পাঠিয়ে দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখায় ড. সাইদুর রহমানকে সিআইপি নির্বাচিত করা হয়েছে। এরই মধ্যে এ দুইজনকে বাংলাদেশ সরকার সিআইপি (এনআরবি) ঘোষিত হয়েছেন এবং এনআরবি পদক পেয়েছেন।

এর আগে, গত ১৮ ডিসেম্বর কুয়ালালামপুরস্থ হাইকমিশন আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়া থেকে বৈধপথে দেশে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স পাঠিয়ে জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ৯ প্রবাসী বাংলাদেশিকে দেয়া হয় সম্মাননা পদক।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হাইকমিশনের শ্রম মিনিস্টার ও অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের ডিরেক্টর মো. নাজমুছ সাদাত সেলিম, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোরশেদুল কবীর, প্রস্তাবিত ডাইরেক্টর জায়মান আহমেদ, চিফ অ্যাক্সিকিউটিভ অফিসার ও ডিরেক্টর সুলতান আহমেদ, অপারেশন ম্যানেজার মো. মনজুর মোর্শেদুল ইসলাম, ম্যানেজার ফাইন্যান্স মো. মুস্তাফিজুর রহমান, কমপ্লায়েন্স অফিসার মো. খায়রুল আনোয়ার ও প্রকৌশলী মো. আমিরুল ইসলাম খোকন।

সরকারের পাশাপশি এ ধরনের সম্মাননা ও প্রণোদনা প্রবাসীদের বৈধপথে দেশে অর্থ পাঠাতে উৎসাহিত করে বলে মনে করেন প্রবাসীরা।

২০০৬ সালের জানুয়ারি মাসে মালয়েশিয়ায় যাত্রা শুরু করে অগ্রণী রেমিটেন্স হাউস। এর পর থেকে কিভাবে বৈধপথে দেশে রেমিটেন্স বাড়ানো যায় সে লক্ষ্যে রেমিটেন্স প্রেরণে সচেতনতামূলক বিভিন্ন সভা সেমিনার করে যাচ্ছেন হাউসের সংশ্লিষ্টরা। অগ্রণী রেমিটেন্সের ৬টি শাখার পাশাপাশি এজেন্ট নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। মালয়েশিয়া থেকে রেমিটেন্স আরও বৃদ্ধি পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন অগ্রণী রেমিটেন্স হাউসের কর্মকর্তারা।

মালয়েশিযায় বাংলাদেশি মালিকানাধীন সিটি ব্যাংকের সিটি রেমিটেন্স হাউস, ন্যাশনাল ব্যাংকের ন্যাশনাল ব্যাংক রেমিটেন্স হাউস রয়েছে। অন্যান্য রেমিটেন্স হাউসের মাধ্যমে দেশে অর্থ পাঠানো অনুরূপ সম্মাননা ও সুবিধা প্রাপ্তি প্রত্যাশা করেন প্রবাসীরা।  

সম্পর্কিত পোস্ট