শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

বিপিএলের ফাইনালে আগামীকাল লড়বে
কুমিল্লা-সিলেট

প্রকাশ: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ৯:২০ অপরাহ্ণ আপডেট: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ৯:২০ অপরাহ্ণ
বিপিএলের ফাইনালে আগামীকাল লড়বে<br>কুমিল্লা-সিলেট

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) নবম আসরের পর্দা নামছে আগামীকাল বৃহস্পতিবার। এদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও সিলেট স্ট্রাইকার্স।

সিলেট এই প্রথম বিপিএলের মতো বড় টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে। সিলেটকে ফাইনালে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন দলটির অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

মাশরাফি সফল ক্রিকেটার এবং সফল অধিনায়ক। তার নেতৃত্বে একের পর এক ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি একাধিক সিরিজে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। 

জাতীয় দলের মতো বিপিএলেও সফল মাশরাফি। বিপিএলের প্রথম দুই আসরে ঢাকা গ্যালাডিয়েটর্সের নেতৃত্ব দিয়ে শিরোপা উপহার দেন মাশরাফি। এরপর রংপুর ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে একবার করে শিরোপা উপহার দেন তিনি। 

এবার দায়িত্ব নিয়েছেন সিলেটের। তার ক্যারিশমায় আসরের অন্যতম সেরা শক্তিশালী দল রংপুর রাইডার্সকে হারিয়ে ফাইনালে উন্নীত হয় সিলেট। 

ফাইনালে মাশরাফি যেমন অতীতে চারবার খেলে হারেননি ঠিক তেমনি বিপিএলের রেকর্ড তিনবারের শিরোপাজয়ী কুমিল্লাও হার দেখেনি। 

কুমিল্লা ২০১৫ সালে বরিশাল বুলস, ২০১৯ সালে ঢাকা ডায়নামাইটস ও ২০২২ সালে ফরচুন বরিশালকে হারিয়ে তৃতীয়বার শিরোপা জিতে নেয়।

বৃহস্পতিবারের ফাইনালে এই সমীকরণ আর থাকছে না। 

হয় মাশরাফিকে হার দেখতে হবে, না হয় বিপিএলের গত আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লাকে পরাজয় মেনে নিতে হবে। 

এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বর্তমান অধিনায়ক ইমরুল কায়েস বুধবার মিরপুরে বলেন, সিলেট ভালো ক্রিকেট খেলছে, আমরাও ভালো ক্রিকেট খেলেছি। কারণ আমরা প্রথম তিনটা ম্যাচ হারার পর যেভাবে কামব্যাক করেছি এটা অবশ্যই আমাদের খেলোয়াড়দের কৃতিত্ব দিতে হবে। সবাই খুব পরিশ্রম করেছে এবং সবাই চেয়েছে যে আমরা ফাইনাল খেলব। 

কুমিল্লার অধিনায়ক আরও বলেন, ফাইনালে আসতে পেরেছি। আশা করি আমরা একইভাবেই শিরোপার লড়াই করব। শুধু ফাইনাল হিসেবে নয়, কালকে আমরা একটা ম্যাচের মতো পরিকল্পনা করেই খেলবে। যদি ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি ইনশাআল্লাহ ভালো ফলাফল আসবে। 

প্রতিপক্ষ হিসেবে সিলেটকে নিয়ে কুমিল্লার অধিনায়ক বলেন, তারা যেভাবে টুর্নামেন্টটা শুরু করেছিল এবং ফাইনালে এসেছে। এটা তাদের কৃতিত্ব দিতে হবে। তারা খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছে। বিশেষ করে তাদের যারা স্থানীয় ক্রিকেটার আছে তারা খুব ভালো ক্রিকেট খেলেছে। আমরা তাদের দুটি ম্যাচে হারিয়েছে। সিলেট অবশ্যই শক্তিশালী দল। আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে তাহলেই চ্যাম্পিয়ন হওয়া সম্ভব। 

ফাইনালের আগের দিন আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে দুই দলের বোলিং শক্তি নিয়ে ইমরুল বলেন, আমাদের দল তো সেটআপ হয়ে গেছে। আগে ব্যাটিং করি বা পরে ব্যাটিং করি এটা নিয়ে আমাদের ম্যাটার করে না। কারণ আমরা কাকে কখন বোলিং করাব এটা ম্যাটার করে। 

তিনি আরও বলেন, শিশির থাকলে শুরুতে যে বোলিং করবে বা শেষে যে ফিল্ডিং করবে… এই জিনিসটা আসলে পুরোটা আমাদের ওপর নির্ভর করে। দুই দলেরই বোলিং শক্তিশালী বলে আমি মনে করি। দুই দলের বোলিং শক্তিশালী না হলে তো ফাইনাল খেলতে পারত না। এ সিদ্ধান্তটা আসলে মাঠেই হয়। এখানে বলা কঠিন।

সম্পর্কিত পোস্ট