শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বিএনপির সমাবেশের আগে ফেনীতে ১৪৪ ধারা

প্রকাশ: ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ১:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | ১:৫৫ অপরাহ্ণ
বিএনপির সমাবেশের আগে ফেনীতে ১৪৪ ধারা

ফেনীতে বিএনপির সমাবেশের আগে যুবলীগ সমাবেশের ডাক দেওয়ায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন। এ বিষয়ে ফেনীর ডিসি আবু সেলিম মাহমুদ-উল হাসানের লিখিত আদেশ মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে মাইকিং করে জেলা তথ্য দপ্তর।

ডিসি বলেন, শহরের শহীদ শহীদুল্লা কায়সার সড়কের ওয়াপদা মাঠে মঙ্গলবার বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু তারা তা স্থগিত করে। বুধবার বেলা ২টায় সমাবেশ করার জন্য আবার আবেদন করে তারা। প্রায় একই সময় (বেলা ১২টায়) জেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে একই মাঠে সমাবেশ করতে চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। “কাউকে অনুমতি দেওয়া হয়নি। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।”

বুধবার সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ফেনী শহর ও পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি থাকবে বলে জানানো হয় আদেশে। এ সময়ের মধ্যে ওই এলাকায় কোনো প্রকার সভা-সমাবেশ বা জনসমাগম করা হবে আইন-বিরুদ্ধ।

যুবলীগের এই ঘোষণায় জেলা বিএনপির সদস্যসচিব আলাল উদ্দিন আলাল ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, জয়নাল হাজারীর আকস্মিক মৃত্যুর কারণে তারা মঙ্গলবার সমাবেশ করতে পারেননি। এজন্য বুধবার বেলা ২টায় সমাবেশের ঘোষণা দেন তারা। এ জন্য মঙ্গলবার বিকালে মাঠে মঞ্চ তৈরির কাজ ও শুরু হয়। “আমাদের সমাবেশ ভণ্ডুল করার জন্য পরিকল্পিতভাবে একই স্থানে জেলা যুবলীগ আকস্মিকভাবে সমাবেশ ডেকেছে। এই ঘোষণায় আমরা হতভম্ভ। এতে আমাদের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এসব করে আমাদের আন্দোলন দমানো যাবে না। যতই বাধা আসুক, প্রতিহত করা হবে। বিএনপি যেকোনো মূল্যে তাদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে।”

তবে স্থানীয় যুবলীগ নেতারা দাবি করেছেন, ওয়াপদা মাঠে বুধবার যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সমাবেশের সিদ্ধান্ত তারা আগেই নিয়েছেন। তাছাড়া একই স্থানে বিএনপির সমাবেশ করবে তা তারা জানতেন না বলেও দাবি করেন।

বিএনপি বা যুবলীগের সমাবেশ বিষয়ে পুলিশ আগে থেকে অবগত না বলে জানিয়েছেন ফেনী থানার ওসি মো. নিজাম উদ্দিন।

তিনি বলেন, “ওই মাঠে বিএনপি ও যুবলীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণার পর আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছি। এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতনদের নির্দেশনা মোতাবেক সভাস্থলের আশপাশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।”

মঙ্গলবার রাত থেকে শহরজুড়ে পুলিশের টহল বাড়ানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

সম্পর্কিত পোস্ট