বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ বাড়ানোর আহবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

প্রকাশ: ৭ এপ্রিল ২০২২ | ১:১১ অপরাহ্ণ আপডেট: ৭ এপ্রিল ২০২২ | ১:১১ অপরাহ্ণ
বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ বাড়ানোর আহবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বাড়ানোর আহবান জানিয়ে ‘বাংলাদেশ ককাসকে’ পুনরুজ্জীবিত করার জন্য মার্কিন সিনেটরকে প্রস্তাব দিয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন

৫ এপ্রিল ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন সিনেটরের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ আহবান করেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্তিত ছিলেন, সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফ, নাহিম রাজ্জাক এবং পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

মোমেন মার্কিন সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা সিনেটর চাক শুমারের (ডি-এনওয়াই) সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিনি হাউস ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটির সদস্য কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাবোটের (আর-ওএইচ) সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াশিংটন ডিসিভিত্তিক থিংক ট্যাংক দ্বারা আয়োজিত কয়েকটি অনুষ্ঠানেও যোগ দেন। বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি রাশেদ চৌধুরীকে ফেরানোর বিষয়টি উত্থাপন করেন।

মানবাধিকার ও গণতান্ত্রিক নীতির প্রচার ও সুরক্ষার জন্য বাংলাদেশের প্রচেষ্টার বিশদ বিবরণ দিয়ে মার্কিন সরকারকে র‍্যাব ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার আহবান জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন ব্যবসায়ীক সহযোগিতার বিষয়ে ইউএস চেম্বার অব কমার্সের ইউএস-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সঙ্গে বৈঠকে যোগ দেন। ব্যবসায়িক বৈঠকে বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্যিক, বাণিজ্য ও বিনিয়োগে নিয়োজিত ২০টিরও বেশি মার্কিন কোম্পানির নির্বাহীরা যোগ দেন।

ইউএস-বাংলাদেশ সম্পর্কের গুরুত্ব তুলে ধরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন উল্লেখ করেন যে, বেশ কিছু প্রবৃদ্ধির মূল ক্ষেত্র রয়েছে যেখানে মার্কিন কোম্পানিগুলো বাংলাদেশকে সহায়তা করতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে টেলিকম অবকাঠামো, ডিজিটাল অর্থনীতি, ফার্মাসিউটিক্যালস, ব্লু ইকোনমি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, আর্থিক প্রযুক্তি এবং ডিজিটাল পেমেন্ট।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম শহিদুল ইসলাম আয়োজিত ‘বাংলাদেশ হাউসে’ নৈশভোজে যোগ দেন।

সংলাপ-০৭/০৪/০০৪/আ/আ

সম্পর্কিত পোস্ট