শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

ফ্রান্সের বিরুদ্ধে পাল্টা পিটিশনের প্রস্তুতি আর্জেন্টিনার

প্রকাশ: ২৫ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩:৪৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ২৫ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩:৪৯ অপরাহ্ণ
ফ্রান্সের বিরুদ্ধে পাল্টা পিটিশনের প্রস্তুতি আর্জেন্টিনার

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবলের রোমাঞ্চকর ফাইনালে ফ্রান্সকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নের আনন্দে ভাসছে গোটা আর্জেন্টিনা। এমন উৎসবের মধ্যেও কিছুটা অস্বস্তি রয়েছে মেসিদের। কারণ আবারও ফাইনালের দাবিতে ইতোমধ্যে প্রায় দুই লাখ লোকের স্বাক্ষর নিয়ে পিটিশন করেছে ফ্রান্স। পাল্টা জবাব দিচ্ছে আর্জেন্টিনাও। পাল্টা পিটিশনের জন্য দেশটিতে চলছে স্বাক্ষর গ্রহণের কাজ।

অনলাইন প্ল্যাটটফর্ম চেঞ্জ ডট অর্গে চলছে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের স্বাক্ষর সংগ্রহ। শিরোনামটা বেশ মজার, ‘ফ্রান্স স্টপ ক্রায়িং’। মানে কান্না থামাও ফ্রান্স।

তারপর আর্জেন্টিনার পক্ষ থেকে সেখানে লেখা হয়েছে, ‘আমরা বিশ্বকাপ জেতার পর থেকে ফ্রান্সের কান্না থামছে না। আর্জেন্টিনাকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন না মেনে অভিযোগ করে চলেছে তারা। আমাদের পিটিশনের লক্ষ্য ফ্রান্সের কান্না থামানো এবং তাদের এটা মেনে নেওয়া, মেসিই ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়, এমবাপ্পে তার পুত্র’।

ভ্যালেন্তিন গোমেজ নামের এক ব্যক্তির চালু করা এই পিটিশনে গত শনিবার পর্যন্ত প্রায় পাঁচ লাখের ওপর মানুষ স্বাক্ষর করেছেন। এর আগে ‘মেসওপিনিয়নস’ নামের প্ল্যাটফর্মে বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচ আবারও খেলার দাবিতে পিটিশন দায়ের করে ‘ফ্রান্স ফরএভার’ নামের এক ব্যবহারকারী।

পিটিশনের শিরোনাম ‘ফ্রান্স-আর্জেন্টিনা ম্যাচ আবার হোক’। সেখানে লেখা হয়, ‘রেফারিকে কিনে নেওয়া হয়েছিল, পেনাল্টি হয়নি। দ্বিতীয় গোলের আগে এমবাপ্পে ফাউলের শিকার হন। ম্যাচটি আবারও খেলার দাবিতে সই করুন।’ এই পিটিশনে সই করেন প্রায় দুই লাখেরও বেশি মানুষ।

গত ১৮ ডিসেম্বর আর্জেন্টিনা ও ফ্রান্সের ফাইনাল ছিল ইতিহাস সেরা। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ছিল ২-২ গোলে ড্র। অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটে ব্যবধান ৩-৩। ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। যেখানে ৪-২ ব্যবধানে বিশ্বজয়ের আনন্দে মাতে মেসিরা।

সম্পর্কিত পোস্ট