শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১

প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ

প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০২১ | ১১:৩৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১ | ১১:৪১ পূর্বাহ্ণ
প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ

দেশে থাকতে বাংলাদেশ জানত, সুপার টুয়েলভে গেলেই ভারত-পাকিস্তানের গ্রুপে পড়বে তারা। এশিয়ার দুই পরাশক্তির সঙ্গে আফগানিস্তান ও নিউ জিল্যান্ড, সঙ্গে প্রথম পর্ব পেরিয়ে আসা আরেকটি দল এবং সেটি কোনোভাবেই শ্রীলঙ্কা নয়। তাই সুপার টুয়েলভের আদলে হওয়া মূল বিশ্বকাপে এখন যারা প্রতিপক্ষ, তাদের নিয়ে আগে থেকে খুব একটা ভাবার কোনো কারণ নেই।

খুব কম সময়ের মধ্যে ভিন্ন ধাঁচের একেকটি দলের বিপক্ষে কার্যকর পরিকল্পনা এবং বাস্তবায়নের পথ বের করতে হবে বাংলাদেশকে। সিডিং পরিবর্তন হওয়ায় শুধু গ্রুপই পাল্টায়নি, সময়ও কমে গেছে রাসেল ডমিঙ্গো-মাহমুদউল্লাহদের। আগের হিসাবে ১৪ দিনে পাঁচ ম্যাচ খেলতে হতো বাংলাদেশের, এখন খেলতে হবে স্রেফ ১২ দিনে।
টুর্নামেন্টের মাঝপথে আইসিসির সিদ্ধান্ত বদলের কারণে পাল্টে গেছে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ। সুপার টুয়েলভে নিজেদের প্রথম প্রতিপক্ষের নাম যখন জানলেন মাহমুদউল্লাহরা তখন ম্যাচ শুরু হতে বাকি ৪৮ ঘণ্টারও কম। আইসিসির খামখেয়ালিপনায় জলাঞ্জলি দিতে হচ্ছে এত দিনের হোম ওয়ার্ক। ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াইয়ের ছক হয়ে গেছে অর্থহীন। এখন শ্রীলঙ্কাকে দিয়ে শুরু অভিযানে বাংলাদেশ কত দ্রুত মানিয়ে নিতে পারে, সেটাই দেখার।

শ্রীলঙ্কা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিয়মিত খেলে বাংলাদেশ। কদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেলায় তাসমান সাগর পাড়ের দেশটিও এখন অতটা অপরিচিত নয়। যদিও তাদের বিশ্বকাপ দলের অনেকেই অনুপস্থিত ছিল সেই সিরিজে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলার সুযোগ মেলে মাঝেমধ্যে। কিন্তু ইংল্যান্ড? তারা তো বড্ড অচেনা। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের দেড় দশকেও তো তাদের বিপক্ষে মেলেনি কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ! এবারই প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ইংলিশদের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। পেছনে পাঁচ দিনের মধ্যে তিন ম্যাচ খেলার ধকল। এরপরই আবার পাঁচটি টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে লড়াই। সব মিলিয়ে যোগ হয়েছে বাড়তি চ্যালেঞ্জ।

সম্পর্কিত পোস্ট