শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১

দ. কোরিয়ায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত

প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২২ | ১:৫৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ২০ মার্চ ২০২২ | ১:৫৩ অপরাহ্ণ
দ. কোরিয়ায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাংলাদেশি ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বাংলাদেশি শিশু-কিশোররা উপস্থিত ছিলেন।

শুরুতে দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রদূত মো. দেলওয়ার হোসেন। পরে দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্যদের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রদূত দূতাবাসে জাতির পিতার ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এরপর জাতির পিতার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত এবং দেশ ও জাতির সার্বিক উন্নতি মঙ্গল কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে জাতির পিতার জীবনীর ওপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। পরে আলোচনা অনুষ্ঠানে আলোচকরা দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য বিষয়ে আলোচনা করেন।

রাষ্ট্রদূত মো. দেলওয়ার হোসেন তার বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা ও দেশের মানুষের আর্থসামাজিক মুক্তিতে জাতির পিতার জীবন সংগ্রাম ও ত্যাগের কথা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন।

তিনি জাতির পিতার গৌরবময় জীবনের উপর আলোকপাত করেন। তার জীবনাদর্শ থেকে সন্তানদেরকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য অভিভাবকদেরকে অনুরোধ জানান। শিশুদেরকে জাতির ভবিষ্যৎ হিসেবে উল্লেখ করে তাদেরকে সুন্দর মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠার জন্য তিনি উৎসাহিত করেন।

সিউল বাংলাদেশ দূতাবাস জাতির পিতার জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। রাষ্ট্রদূত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। এ সময় তিনি শিশু-কিশোরদের নিয়ে কেক কাটেন। শেষে শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

সংলাপ-২০/০৩/০০২/আ/আ

সম্পর্কিত পোস্ট