শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

দুবাইতে প্রথমবারের মতো বইমেলা শুরু কাল, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন

প্রকাশ: ৩ নভেম্বর ২০২২ | ২:৪০ অপরাহ্ণ আপডেট: ৩ নভেম্বর ২০২২ | ২:৪০ অপরাহ্ণ
দুবাইতে প্রথমবারের মতো বইমেলা শুরু কাল, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন

দুবাইয়ে প্রথমবারের মত বইমেলা ও বঙ্গসাংস্কৃতি উৎসব কাল থেকে শুরু হতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। মেলার সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাই। তিনদিনব্যাপি বইমেলা শুরু হচ্ছে আগামীকাল শুক্রবার। ইতোমধ্যেই মেলার প্রস্তুতিতে শেষ হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রবাসীদের নিয়ে প্রথমবারের মত আয়োজিত এই বইমেলা ইতিমধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। মেলায় ঢাকা থেকে যোগ দিচ্ছে ত্রিশটি প্রসিদ্ধ প্রকাশনা সংস্থা। প্রবাসে অবস্থানরত কবি সাহিত্যিকদের মানসম্মত বই যাচাই-বাছাই করে মেলায় উপস্থাপনের জন্য জায়গা করে দেওয়া হচ্ছে। আগামী ৪, ৫, ও ৬ নভেম্বর আরব আমিরাতের দুবাইতে বাংলাদেশ কনস্যুলেট প্রাঙ্গনে বইমেলা ও বঙ্গসাংস্কৃতি উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। এই বইমেলা নিয়ে বাংলাদেশের বইপাড়ায়ও শুরু হয়েছে তোর জোর। মেলায় যেখানে ৫০ টি স্টল বরাদ্দ রাখার কথা ছিল। সেখানে চাহিদার কারণে স্টল সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এখন ৭৩টি। মেলাটি দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক কবি সাহিত্যিকদের মিলন মেলায় পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

ইতিমধ্যে মেলার প্রায় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। বৈচিত্রতা নিয়ে আসার জন্য একটি সৃজনশীল টিম অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে। সাংস্কৃতিক আয়োজনকে মনমুগ্ধ করে তোলার জন্য বাংলাদেশী ও পশ্চিম বাংলার শিল্পীরা ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে।

কনস্যুলেট সুত্রে জানা যায়, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বর্ণাঢ্য করে তোলার জন্য বইমেলা ছাড়াও আরো বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ কনস্যুলেট দুবাই। এই দিন মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি। মেলা উদ্বোধন করবেন প্রখ্যাত কবি ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব কবি কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মোহাম্মদ নুরুল হুদা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবু জাফর।

সার্বিক বিষয়ে বি এম জামাল হোসেন বলেন, কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে এই প্রথম তিনদিনব্যাপি বইমেলার আয়োজন করা হচ্ছে। বস্তুত, আমাদের উদ্দেশ্য মানসম্পন্ন লেখক তৈরী করা এবং পাঠক আগ্রহ সৃষ্টি করা। আমরা ইতোমধ্যে প্রবাসীদের থেকে সন্তোষজনক সাড়া পেয়েছি। বাংলাদেশ বইমেলা স্থায়ী প্রবর্ত্তন করা এবং আগামীতে এই মেলায় পরিসর আরও বাড়ানোর ও প্রতি বছর নভেম্বর করার পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রস্তুতির বিষয়ে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রস্তুতি সন্তোষজনক। সবকিছু ঠিক থাকলে কাল যথাসময়ে মেলার উদ্বোধন হবে।

প্রেসক্লবা ইউএই সভাপতি শিবলী সাদিক বলেন,
সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশ কনস্যুলেট প্রাঙ্গণে বইমেলা প্রবাসীদের জন্য এক নতুন বার্তা। এই বইমেলার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সহ নানা কিছু বহি বিশ্বে ছড়িয়ে পড়বে। প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে প্রকাশ পাবে সৃজনশীলতা। বিনিময় হবে একাধিক দেশের সংস্কৃতি। বাঙালি বা বাংলাদেশী সংস্কৃতির বর্ণাঢ্য ইতিহাস প্রসঙ্গে জানতে পারবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লোকজন। বাংলাদেশ এবং বাংলা ভাষার প্রতি প্রবাসী শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বাড়বে। সংযুক্ত আরব আমিরাত বাসির মধ্যে সৃষ্টি হবে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি। আমাদের প্রত্যাশা এই বইমেলা সফল হোক,সাথে আমাদের ভাবমূর্তিও উজ্জ্বল হোক।

সম্পর্কিত পোস্ট