মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

গণস্বাস্থ্যে আরও কম খরচে ডায়ালাইসিস, থাকছে নানান সেবা

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২২ | ১২:৪৬ অপরাহ্ণ আপডেট: ১৪ এপ্রিল ২০২২ | ১২:৪৬ অপরাহ্ণ
গণস্বাস্থ্যে আরও কম খরচে ডায়ালাইসিস, থাকছে নানান সেবা

কিডনি রোগে আক্রান্ত দরিদ্র রোগীদের চিকিৎসাসহ বিকল কিডনি রোগীদের আরও কম খরচে ডায়ালাইসিস সুবিধা দেবে গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার হাসপাতাল। পয়লা বৈশাখ থেকে বিশেষ এই সুবিধা দেওয়ার কথা জানিয়েছে গণস্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (১৩ এপ্রিল) বিকেলে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, পয়লা বৈশাখ (১৪ এপ্রিল) থেকে বাংলা নতুন বছরে গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে দরিদ্র বিকল কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিসের আর্থিক গ্রুপভিত্তিক দর আরও কমানো হয়েছে। একইসঙ্গে দূর থেকে আসা বা কর্মজীবী বিকল কিডনি রোগীদের জন্য গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে রাত ৮টা থেকে ভোর ৫টার বিশেষ শিফটে আর্থিক গ্রুপভিত্তিতে ৫০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকায় হেমোডায়ালাইসিস করার সুবিধা দেওয়া হবে। ডায়ালাইসিস চলাকালীন হাসপাতাল থেকে ফ্রি খাওয়ার ব্যবস্থাও থাকবে। আর ডায়ালাইসিস শেষে বাকি সময়ে বিশ্রামের ব্যবস্থা রয়েছে।

এছাড়াও ঢাকা শহরের আশে পাশে রাতের শিফটের রোগীকে ১০০ টাকায় বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, সপ্তাহে ৩টি সেশনের অগ্রিম বুকিংয়ের ক্ষেত্রেও বিশেষ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া সকল বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের বহির্বিভাগের পরামর্শ ফিও কমানো হয়েছে। আর্থিক গ্রুপভিত্তিক ফি বিনামূল্য থেকে ৭০০ টাকা করা হয়েছে।

আরও জানানো হয়েছে, কম খরচে কিডনি রোগীদের চিকিৎসা সুবিধা দেওয়ার লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সকল প্রতিষ্ঠান সবসময় মানুষের জন্য কম খরচে সেবা দিয়ে থাকে। গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টারও সুলভে গুনগত মানের চিকিৎসা সেবা দেয়।

বিজ্ঞপ্তিতে সমাজের অবস্থাসম্পন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার বিশেষ আবেদন ও অনুরোধ করা হয়।

প্রসঙ্গত, বিকল কিডনি রোগের রোগীদের বেঁচে থাকার একটি মাত্র চিকিৎসা ডায়ালাইসিস। ডায়ালাইসিস সেবা ব্যয়বহুল। বিকল কিডনি রোগের সঙ্গে রোগীদের বেশির ভাগেরই অন্য কোন অসংক্রামক রোগ থাকেই। এছাড়া অন্যান্য চিকিৎসা খরচ, ওষুধ, যাতায়াত, বিশেষ খাবার ইত্যাদি তো রয়েছেই। দেখা যায়, রোগীর স্বজনরা যে আর্থিক অবস্থারই হউক না কেন তারা ধীরে ধীরে দরিদ্র থেকে দরিদ্রতর হতে থাকে। এক পর্যায়ে এরা ডায়ালাইসিস করাতেও পারে না।

গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার ডায়ালাইসিসের দর কমানোর পরেও বিকল কিডনি রোগের রোগীরা শুধুমাত্র টাকার অভাবে নিয়মিত ডায়ালাইসিস করাতে পারছেন না। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র সমাজের অবস্থাসম্পন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় প্রতিদিন গড়ে ৩০০ থেকে ৩২০ জন বিকল কিডনি রোগীদের নামমাত্র খরচে গুনগত মানের সেবা নিশ্চিত করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে।

সম্পর্কিত পোস্ট