শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০

খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজ-আদার বাজারে উত্তাপ

প্রকাশ: ৪ মে ২০২৩ | ৩:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ৪ মে ২০২৩ | ৩:১৯ অপরাহ্ণ
খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজ-আদার বাজারে উত্তাপ

ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ। এই অজুহাতে বেড়েই চলেছে সংসারের অতিপ্রয়োজনীয় পণ্যটির দাম। মাত্র ১০ দিন আগে দেশের অন্যতম বৃহত্তম পাইকারি বাজার চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের দাম ছিল ৩৮ থেকে ৪০ টাকা। সেই পেঁয়াজ এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা করে। খুচরা বাজারে দাম আরও বেশি। বর্তমানে বাজারে ভারতের পেঁয়াজ সরবরাহ নেই বললেই চলে। তবে পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে দেশি পেঁয়াজ। বিক্রিও হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ। তবে সরবরাহ এবং মজুত পর্যাপ্ত থাকলেও পণ্যটির দাম বাড়তির দিকে।

এছাড়া, উত্তাপ ছড়াচ্ছে আদার বাজারও। মাত্র ১০ দিনের ব্যবধানে পণ্যটির দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১০ দিন আগে খাতুনগঞ্জে ভারতের কেরালা থেকে আসা আদা বিক্রি হয়েছে কেজিপ্রতি কমবেশি ১১০ টাকা করে। আজ (বুধবার) বিক্রি হচ্ছে ১৭০ টাকা করে।

আবার রমজানে বন্ধ থাকলে এখন শুরু হয়েছে চীন থেকে আদা আমদানি। খাতুনগঞ্জে এখন চায়না আদা বিক্রি হচ্ছে ২৬০ টাকা করে। আবার ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে দেশটি থেকে আরও আদা আমদানি হবে বলে জানিয়েছেব ব্যবসায়ীরা। বাজারে ১০ দিন আগে মিয়ানমারের আদা বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকা করে। এখন বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ১৭০ করে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, দেশে পর্যাপ্ত পেঁয়াজ উৎপাদন হওয়ায় ভারত থেকে আমদানি বন্ধ রেখেছে সরকার। গত ১৫ মার্চ থেকে আমদানি অনুমতিপত্র দিচ্ছে না সরকার। চাহিদার পুরোটা মেটানো হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ দিয়ে।

সম্পর্কিত পোস্ট