মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১

ইসরায়েলের যেকোনও হামলা মোকাবিলায় প্রস্তুত : ইরানের সেনাবাহিনী

প্রকাশ: ১৭ এপ্রিল ২০২৪ | ৫:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০২৪ | ৫:৫৯ অপরাহ্ণ
ইসরায়েলের যেকোনও হামলা মোকাবিলায় প্রস্তুত : ইরানের সেনাবাহিনী

ইসরায়েলের যেকোনও ধরনের হামলা মোকাবিলায় ইরানের সামরিক বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছে তেহরান। দেশটির বিমানবাহিনী বলেছে, ইসরায়েলের যেকোনও পদক্ষেপ মোকাবিলায় তারা প্রস্তুত রয়েছে। বুধবার ইরানের রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমের খবরে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

একই দিনে ইরানের নৌবাহিনীর কমান্ডার বলেছেন, তারা লোহিত সাগরে ইরানের বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে নিরাপত্তা দিচ্ছে।

গত ১ এপ্রিল দামেস্কে ইরানের একটি কূটনৈতিক ভবনে ইসরায়েলি হামলার প্রতিশোধ হিসেবে গত ১৩ এপ্রিল প্রথমবারের মতো সরাসরি ইসরায়েলে হামলা চালায় ইরান। ওই দিন ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন স্থাপনা ও ঘাঁটি লক্ষ্য করে শত শত ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে ইরানের সামরিক বাহিনী।

ইরানের এই হামলার ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যে তুমুল উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। ইসরায়েল বলেছে, তারা ইরানে পাল্টা হামলা করবে। হামলার বিভিন্ন বিকল্প নিয়ে আলোচনা করতে বুধবার ইসরায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভা বৈঠক করছে।

ইরানের সশস্ত্র দিবস উপলক্ষ্যে বুধবার তেহরানে এক সামরিক প্যারেডে অংশ নিয়ে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি বলেছেন, ‌‌‘‘আমাদের মাটিতে ইহুদিবাদী ইসরায়েলের যে কোনও ধরনের হামলার কঠোর জবাব দেওয়া হবে।’’

একই অনুষ্ঠানে ইরানের বিমান বাহিনীর কমান্ডার সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, ইরানের হাতে থাকা রাশিয়ার তৈরি সুখোই-২৪ যুদ্ধবিমানসহ অন্যান্য বিমান ইসরায়েলি হামলার মোকাবিলা করার জন্য ‘‘সর্বোচ্চ প্রস্তুত অবস্থায়’’ রয়েছে।

কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির ভাহেদি বলেন, ‘‘আমাদের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এবং বোমারু বিমানসহ সব ক্ষেত্রেই পূর্ণ প্রস্তুতি রয়েছে। আমরা যেকোনও ধরনের পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত রয়েছি।’’

ইরানের ভেতরে দেশটির বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর ঘাঁটি কিংবা পারমাণবিক গবেষণা কেন্দ্রগুলোতে সরাসরি হামলা চালাতে পারে ইসরায়েল। এছাড়া ইরানের বাইরেও লক্ষ্যবস্তু রয়েছে।

দেশটির আধা-সরকারি বার্তা সংস্থা তাসনিম নিউজ এজেন্সির প্রতিবেদন অনুযায়ী, অ্যাডমিরাল শাহরাম ইরানি বলেছেন, ইরানের নৌবাহিনী তাদের বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে লোহিত সাগরে পাহারা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, নৌবাহিনী ইরানের বাণিজ্যিক জাহাজগুলোকে লোহিত সাগরে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি মিশন পরিচালনা করছে এবং আমাদের জামারান ফ্রিগেট এডেন উপসাগরে উপস্থিত রয়েছে।

শাহরাম ইরানি বলেছেন, তেহরান অন্যান্য দেশের জাহাজগুলোকেও এসকর্ট দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। ইয়েমেনের ইরান-সমর্থিত বিদ্রোহীগোষ্ঠী হুথিদের হামলায় লোহিত সাগরে ইসরায়েল-গামী জাহাজ চলাচলে ব্যাপক ব্যাঘাত ঘটছে।

সম্পর্কিত পোস্ট