বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১

নবীগঞ্জ

ইউপি চেয়ারম্যানের অভিযোগে সচিব বরখাস্ত

প্রকাশ: ৪ মার্চ ২০২২ | ৬:৩৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ৪ মার্চ ২০২২ | ৬:৪০ অপরাহ্ণ
ইউপি চেয়ারম্যানের অভিযোগে সচিব বরখাস্ত

ভিজিডি কার্ডধারীদের সঞ্চয়ের টাকা ব্যাংকে জমা না দেওয়া অভিযোগে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার এক সচিবকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বরখাস্তকৃত সচিব এইচ এ এম তৌফিক ইমাম উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নে কর্মরত ছিলেন।

শুক্রবার (৪ মার্চ) সচিব তৌফিকের বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান স্বাক্ষরিত আদেশে তৌফিককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। তারস্থলে সপ্তাহে দুইদিন পানিউমদা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করবেন।

জানা গেছে, চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নে নির্বাচিত চেয়ারম্যান শাহ রিয়াজ নাদির সুমন দায়িত্ব গ্রহণ করেন। নিয়ম অনুযায়ী কর্তব্যরত সচিব তাকে দায়-দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার কথা থাকলেও তা পালনে অনীহা প্রকাশ করেন সচিব এইচ এ এম তৌফিক ইমাম। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান বার বার তাগাদা দিলেও কর্ণপাত করেনি তৌফিক। বাধ্য হয়ে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ইউপি চেয়ারম্যান শাহ রিয়াজ নাদির সুমন বাদী হয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে দাযিত্ব বুঝিয়ে না দেওয়া ছাড়াও ভিজিডির আওতায় সুবিধাভোগীদের সঞ্চয়ের টাকা জমা না দেওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অফিসে অনিয়মিত ও বিভিন্ন বরাদ্দ সময় মতো বণ্টন না করার অভিযোগ তোলা হয়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনের তদন্ত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন। তদন্তে লিখিত অভিযোগের সত্যতা পায় উপজেলা প্রশাসন। পরে সচিব তৌফিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে জেলা প্রশাসক বরাবর সুপারিশ করেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন বলেন, দেবপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রিয়াজ নাদির সুমনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্তে সচিবের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া যায়। তদন্তকালে ভিজিডির কর্মসূচির সুবিধাভোগীদের সঞ্চয়ের ৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা সচিব ব্যাংকে জমা দেননি বলে প্রতিয়মান হয়। এছাড়া প্যানেল চেয়ারম্যান গঠন না করা, উন্মুক্ত ওয়ার্ড সভা না করা, কম্বল বিতরণে বিলম্ব হওয়া, নিয়মিত অফিস না করা এবং ইউপি অফিসের দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হয়। এর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের আদেশে সচিব এইচ এ এম তৌফিক ইমামকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

সংলাপ/০৪/০৩/০০১/ হাসান

সম্পর্কিত পোস্ট