শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

আরব আমিরাতে প্রবাসীদের ঈদ

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০২৩ | ১:২৬ অপরাহ্ণ আপডেট: ২৮ জুন ২০২৩ | ১:২৮ অপরাহ্ণ
আরব আমিরাতে প্রবাসীদের ঈদ

পরিবার পরিজন ছাড়া সংযুক্ত আরব আমিরাতে পবিত্র ঈদুল আজহা পালন করেছে প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্বজনহীন ঈদ কিছুটা নিরস হলেও বন্ধু বান্ধব নিয়ে সে অভাব পূরণ করতে চেয়েছেন তারা।

বুধবার (২৮ জুন) দেশটিতে উদযাপিত হয় ঈদুল আজহা। এদিন ফজরের নামাজের আগে থেকেই মসজিদ ও ঈদগা প্রাঙ্গণে জড়ো হতে শুরু করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। ফজরের নামাজের পর পবিত্র ঈদ উল আজহা উপলক্ষে ভোর ৬টার মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় দিনের প্রথম জামাত। বিভিন্ন দেশের হাজার হাজার মুসলিম নাগরিকের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঈদের নামাজে শরিক হন প্রবাসী বাংলাদেশিরাও।

বাংলাদেশিদের জন্য প্রবাস জীবন অনেকটা ছন্দহীন। নিরানন্দ ও পরিশ্রমী জীবনযাপনের প্রবাস নামক ডায়েরির এক একটা পাতা যেন প্রবাসীদের জীবন গাঁথা। কর্মেডুবে থাকা ব্যস্ততার মাঝেও প্রবাসীদের ঈদের প্রধান আনন্দ দেশে আপনজনদের জন্য টাকা পাঠানো।

বেশিরভাগ প্রবাসী শ্রমিকদের কোরবানির দিন ব্যতীত ছুটি থাকে না। আবার অনেকের কোরবানির দিনও ডিউটি থাকে। ঈদের দিন ডিউটিতে থাকা অনেক প্রবাসীদের আক্ষেপ করে বলতে শোনা যায়-কী আর করব! বিদেশে আসছি টাকা উপার্জন করতে, আমাদের মতো হতভাগাদের ঈদ কী আবার? এ তো একটি কয়েদখানা।

এত কিছু সত্ত্বেও কোরবানির ঈদ পালন করতে পিছিয়ে নেই প্রবাসীরাও। কোরবানির ঈদের দিন বিভিন্ন আয়োজন করে থাকেন প্রবাসীরা। কয়েকজন মিলে অংশীদারের ভিত্তিতে ছাগল কিনে জবাই করেন। আবার কেউ কেউ একসঙ্গে মিলে গরু কিনে জবাই করেন। কেউবা আবার বাজার থেকে মাংস কিনে আনেন। প্রবাসে থাকা আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবদের দাওয়াত করেন। তারা মনে করেন, এই কর্মময় জীবনে একটা দিন হলেও মিলেমিশে একবেলা খাওয়া-দাওয়া ও গল্প তো করা গেল।

অনেক প্রবাসীদের দেখা যায় তাদের শুধু কোরবানির দিন ছুটি থাকে। ছুটির দিন ঈদগাহ থেকে এসে অনেকে ঘুমিয়ে পড়েন। ঘুম থেকে উঠে ছাগল জবাই করে খাওয়া-দাওয়া শেষ করে আবারও তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়েন, কেননা পরদিন আবার ডিউটিতে যেতে হবে।

সম্পর্কিত পোস্ট