রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

আরব আমিরাতের সাথে বাংলাদেশের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক সুসম্পর্ক রয়েছে

প্রকাশ: ৯ জুন ২০২৪ | ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ৯ জুন ২০২৪ | ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ
আরব আমিরাতের সাথে বাংলাদেশের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক সুসম্পর্ক রয়েছে

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাংলাদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত আবদুল্লাহ আলী আব্দুল্লাহ খাসিফ আল হামুদি বলেছেন, আরব আমিরাতের সাথে বাংলাদেশের একটি ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক সুসম্পর্ক রয়েছে। সহনশীলতা ও মানবিক সহাবস্থানের মূল্যবোধ প্রচার ও প্রসারে যে সকল দেশ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে; সংযুক্ত আরব আমিরাত সেগুলোর অন্যতম। আমি আশা করি সহিষ্ণুতা ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের সংস্কৃতি প্রচার ও প্রসারে আইআইইউসি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আমি আইআইইউসির উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করছি।

গতকাল শনিবার দুপুরে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম ক্যাম্পাস পরিদর্শনের পর আইআইইউসি কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আইআইইউসি উপাচার্য প্রফেসর আনোয়ারুল আজিম আরিফের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আইআইইউসি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী।

বক্তব্যে তিনি বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত বাংলাদেশের বন্ধুরাষ্ট্র। আইআইইউসির সাথে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্পর্ক দীর্ঘ দিনের। আমি মাননীয় রাষ্ট্রদূতকে আইআইইউসি পরিদর্শনে আসার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। আইআইইউসির পক্ষ থেকে বোর্ড অব ট্রাস্টিজ চেয়ারম্যান রাষ্ট্রদূতকে সম্মান সূচক ক্রেস্ট তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিওটি সদস্য প্রফেসর ড. ইঞ্জিনিয়ার রশীদ আহমেদ চৌধুরী, মোহাম্মদ খালেদ মাহমুদ, প্রফেসর ড. মোহাম্মদ সালেহ জহুর, প্রফেসর ড. মো. ফসিউল আলম, উপ–উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ মছরুরুল মওলা, ভারপ্রাপ্ত ট্রেজারার প্রফেসর ড. মাহি উদ্দিন, রেজিস্ট্রার আ ফ ম আখতারুজ্জামান কায়সার, ফ্যাকাল্টি ডিনবৃন্দ, শিক্ষক–শিক্ষিকা, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

এর আগে রাষ্ট্রদূত আইআইইউসি ক্যাম্পাসে বৃক্ষরোপণ করেন ও ক্যাম্পাস পরিদর্শন করেন। পরে শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ান ট্রাস্টের অর্থায়নে নির্মিত সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ফ্যাকাল্টির শেখ জায়েদ সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কমপ্লেঙের ক্লাসরুম ও ল্যাবসমূহ পরিদর্শন করেন ও সংস্থাটির অর্থায়নে নির্মিতব্য শেখ জায়েদ সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কমপ্লেঙের দ্বিতীয় একাডেমিক ভবন পরিদর্শন করেন।

সম্পর্কিত পোস্ট