শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশের মেয়েরা, আরও এক শিরোপা জয়

প্রকাশ: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১০:১২ অপরাহ্ণ আপডেট: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১০:১২ অপরাহ্ণ
অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশের মেয়েরা, আরও এক শিরোপা জয়

অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশের নারী ফুটবল। আজ (৯ ফেব্রুয়ারি) কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে নেপালকে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-২০ সাফের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ।

কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা নেপালকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে আরও একটি সাফের শিরোপা ঘরে তুললো। গত বছর নেপালের মাটিতে এই নেপালকেই হারিয়ে সিনিয়র সাফের শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ।

উৎসবের জন্য প্রস্তুতি ছিলে আগে থেকেই। আসরে প্রথম ম্যাচে এই নেপালকে হারিয়েই যাত্রা শুরু করেছিল বাংলাদেশ। এই ম্যাচে ফেভারিট তকমা নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন শামসুন্নাহার-রূপনা চাকমারা। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ খেললো চ্যাম্পিয়নের মতই। নেপালের ওপর পুরো ম্যাচেই আধিপত্য ধরে রেখেছিল গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা।

খেলার শুরুর মিনিটেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ। ডি-বক্সের বাইরে থেকে আকলিমা খাতুনের শট ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়। খেলার ২ মিনিটে স্বপ্না রানির ক্রসে ডি-বক্সে বল পেয়েও গোল দিতে পারেননি শাহেদা আক্তার রিপা। খেলার ১১ মিনিটে প্রথমবার বাংলাদেশের রক্ষণভাগে আক্রমণে আসে নেপালের মেয়েরা। ডি-বক্স ঢুকলেও বল নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেননি নেপালি ফরোয়ার্ড মোমিতা পন। তার শট ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়।

৪২ মিনিটে বাংলাদেশকে এগিয়ে দেন শাহেদা আক্তার রিপা (১-০)। ডি-বক্সের জটলা থেকে বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে ভুল করে বসেন নেপালি ডিফেন্ডার কুমারি তামাং। তিনি বল তুলে দেন শাহেদার কাছে। নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ডি-বক্সের একটু বাইরে থেকে আড়াআড়ি শটে গোল করেন বাংলাদেশি এই ফরোয়ার্ড।

পিছিয়ে পড়ে সমতা ফিরতে মরিয়া হয়ে ওঠে নেপাল। তবে ম্যাচে ফিরতে পারেনি তারা। উল্টো প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ে বাংলাদেশের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অধিনায়ক শামসুরন্নাহার জুনিয়র (২-০)। আফিদার বাড়ানো বল সঠিক সময়ে ক্লিয়ার করতে পারেনি নেপালি ডিফেন্ডাররা। সুযোগ বুঝে ডি-বক্স ঢুকে গোল করেন বাংলাদেশি অধিনায়ক। ২-০ স্কোরলাইন রেখে রেখে বিরতিতে যায় স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয়ার্ধে গোল শোধের জন্য চেষ্টা করছিল নেপাল। তবে বাংলাদেশের শক্তিশালী ডিফেন্সের কাছে পাত্তাই পাচ্ছিল না তারা। ম্যাচের ৫৬ মিনিটে নিজেদের ডি-বক্সে শামসুরন্নাহারের শট ক্লিয়ার করতে গিয়ে মুখে বল লাগে নেপালি গোলরক্ষক কবিতা বিকের। তাতে দুই মিনিট খেলা বন্ধ থাকে। খেলার ৭৬ মিনিটে আফিদার বল ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে।

তবে ৮৬ মিনিটে বাংলাদেশের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন উন্নতি খাতুন। শাহেদার আক্তার রিপার ফ্রি-কিক থেকে উড়ে আসা বলে গোল পোস্টের কাছেই থাকা উন্নতি খাতুন পা ছুঁইয়ে দিয়ে গোলে রূপান্তরিত করেন। এরপর বেশ কিছু গোলের সুযোগ তৈরি করে বাংলাদেশ। তবে শেষ পর্যন্ত ব্যবধান আর বাড়েনি।

গত সেপ্টেম্বরে নেপালের কাঠমান্ডুতে বিজয়ের পতাকা উড়িয়েছিলেন সাবিনা-কৃষ্ণারা। সাড়ে ৫ মাসের ব্যবধানে এবার ঢাকায় বিজয়ের পতাকা ওড়ালেন সাবিনাদের অনুজ শামসুন্নাহার জুনিয়র-রূপনা চাকমারা। সিনিয়র নারী সাফের পর অনূর্ধ্ব-২০ সাফেও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা।

সম্পর্কিত পোস্ট